কিভাবে এন্ড্রোয়েড মোবাইল ভালো রাখবেন

তথ্য প্রযুক্তির এই যুগে মোবাইল ছাড়া এক মূহুর্ত ভাবাই যেনো অসম্ভব।
প্রতিনিয়ত মোবাইল আমাদের সবচেয়ে বড় এখনকার সময়ের পরম এক বন্ধু।মোবাইল ছাড়া চিন্তা করা যায়না।
কিন্তু আমরা মোবাইল ব্যবহারের জন্যে মোবাইলের কিছু গুরুত্বপূর্ণ দিক জেনে রাখতেই সময় পাইনা।যেই বিষয়গুলো অবশ্যই আপনার জানা উচিৎ যদি আপনি একটি এন্ড্রোয়েড স্মার্ট ফোন ব্যববার করে থাকেন।

বেশকিছু উপায়ে একটি এন্ড্রোয়েড মোবাইলকে সুরক্ষিত রাখা যায় জেনে নেয়া যাক সেই সিস্টেম গুলো -:

১. বর্তমান বাজারে স্মার্টফোনের হাজার বাজার কোম্পানি রয়েছে সস্তা থেকে দামী ফোন পর্যন্ত। সবাই নিজেদের ফোন গুলো বেচে নিচ্ছে নিজের ইচ্ছে।
একটি স্মার্টফোনের সব চেয়ে বড় সমস্যাটি হচ্ছে অল্প ব্যবহারের কারনেই গরম হয়ে যাওয়া।তাই এই বিষয়টি অবশ্যই আপনার জানা উচিৎ যখন মোবাইলটি গরম হবে তখন কী করবেন?
মোবাইল গরম হলে বিশেষ করে ক্যামেরার অংশটি গরম হয়ে যায় তাই তাৎক্ষনিক মোবাইলের ডাটা কানেকশনটি অফ করে দিন।
পাশাপাশি প্রয়োজনে মোবাইলটি কিচ্ছুক্ষন অফ রাখুন এবং কিছু সময়ের জন্যে ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন।
লো বাজেটের বেশিরভাগ ফোন গুলোই কিছুক্ষন ব্যবহারের পরেই গরম হয়ে যায়।
এই ফোন গুলো ব্যবহারে সহজ হলেও কিছুটা হলেও ব্যবহারকারী দের যন্ত্রনা দিয়ে থাকে।
যেমন আমাদের দেহের সকল কার্যক্রম নিয়ন্ত্রন করে আমাদের মস্তিস্ক ঠিক তেমনি মোবাইল এর মস্তিস্ক হচ্ছে প্রসেসর। তাই প্রসেসর এর উপর যতটা চাপ সৃস্টি কম হবে তত আপনার মোবাইল ফোনটি ভাল চলবে প্রসেসর আপনার ফোন এর প্রধান। যে আপনার ফোন এর প্রতিটি কাজ সম্পন্ন করে থাকে। আপনি ফোন ব্যবহার করেন বা নাই করেন প্রসেসর কিন্তু সবসময় চলতে থাকে এবং তার কাজ করতে থাকে। প্রসেসর এর ভেতর অনেক ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র ইলেকট্রন থাকে। যখন প্রসেসর তার কাজ করে তখন এই ইলেকট্রন গুলি দ্রুত নড়াচড়া করতে থাকে।এই সময় ইলেকট্রন গুলো নিজেদের ভেতর সংঘর্ষ ঘটায় এবং তাপ উৎপাদন করে। অর্থাৎ আপনার প্রসেসর যত বেশি কাজ করে ততো বেশি তাপ উৎপন্ন করে। এখন আপনি যদি কম কাজ করেন, যেমন ধরুন শুধু ফোন এ কথা বলছেন, কিংবা গান শুনছেন তাহলে আপনার ফোনটি কম গরম হবে। কিন্তু যদি এমন হয় যে, আপনি গেম খেলছেন এবং একই সাথে ইন্টারনেট থেকে কোনো ফাইল ও ডাউনলোড করছেন, তবে স্বাভাবিক ভাবেই আপনার ফোন এর প্রসেসর কে বেশি কাজ করতে হবে যার ফলে বেশি গরম হবে আপনার স্মার্টফোনটি।

২. অতিরিক্ত ইন্টারনেট ব্রাউজিং এর কারনে আমাদের মোবাইল ফোন অনেক সময় গরম হয়ে যায়।ইন্টেরনেট চালানোর সময় bad network signal এর সময় ইন্টেরনেট ব্যাবহার করবেন না। কেননা এই সময় আপনার মোবাইলের প্রসেসর ভাল নেটওয়ার্ক পাওয়ার জন্য চেস্টা করতে থাকে। আর যদি সে ভাল সিগনাল না পায় তবে সে তার কাজ চালিয়ে জেতে থাকে। এইসময় এই কাজটি যখন হয় তখন প্রসেসর দ্রুত গরম হতে থাকে। তাই আমার পরামর্শ হচ্ছে ভাল নেটওয়ার্ক যখন নেই তখন ইন্টারনেট তখন ইন্টারনেট চালানো থেকে বিরত থাকুন। আপনি মোবাইল ব্যাবহার করুন বা না করুন প্রসেসর ঠিকই চলতে থাকে।

৩. ব্যাকপাট/কিংবা মোবাইল কাভার ব্যবহারে সাবধান হোন।
অনেক সময় দেখা যায় অনেকেই মোবাইলের সেইফটির জন্যে বিভিন্ন ধরনের ব্যাককাভার ব্যাকপাট ব্যবহার করে থাকেন।
বিশেষ কিছু সময় এইসবের জন্যে এন্ড্রোয়েড মোবাইল ফোনটি গরম হয়ে যায়।তার দিকে খেয়াল রাখতে হবে।
মোবাইলের ব্যককাভার ব্যবহার করলে তা যেনো খুব বেশি শক্ত এবং প্লাস্টিকের উর্ধে কিছু না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।
বাজারে বিভিন্ন ধরনের প্ল্যাস্টিক ব্যককাভার পাওয়া যায় যেগুলো ব্যবহার করলে মোবাইল তুলনামূলক কম গরম হয়ে থাকে।
তাই এই বিষয়টি অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে।

৪. মোবাইলের প্রসেসর এর উপর বেশিরভাগ সময় মোবাইল ফোনের গরম হয়ে যাওয়া বিষয়টি Depend করে থাকে।কম্পিউটার এর মতন মোবাইলের ও প্রসেসর থাকে যার সাহায্যে মোবাইলের সকল Internal Service গুলো Provide করে থাকে। বেশিরভাগ সময় এই প্রসেসর যখন স্লো কাজ করে থাকে তখন মোবাইল গরম হতে থাকে।বিভিন্ন মোবাইলের প্রসেসর বিভিন্ন রকমের হয়ে থাকে যার মাধ্যমে মোবাইলের গরম/ঠান্ডা হয়ে যায়।

৫. এক সাথে অনেক গুলো এপ্স খুলে রাখেবন না । নিয়মিত র্যাম ক্লিন করুন, অদরকারি মেসেজ ডিলেট করে ফেলুন, বিনা দরকারে ওয়াইফাই চালু রাখবেন না, রাতে ঘুমানোর সময় চার্জ দিয়ে ঘুমাবেন না । এতে ব্যাটারির আয়ু কমে ও মোবাইল গরম হয়।গরম স্থান থেকে মোবাইল দূরে রাখুন।

৬. মোবাইলে অপ্রয়োজনীয় অ্যাপস্ ইন্সটল করে রাখবেন না। নিয়মিত মোবাইলের র‍্যাম ক্লিন করুন। অতিরিক্ত গেম খেলা থেকে বিরত থাকুন খেললে মোবাইল গরম হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। কারন এতে করে আপনার মোবাইলের প্রসেসর এর উপর চাপ সৃস্টি করে।

৭. বাজারে অনেক ধরনের স্মার্টফোন থাকে বিভিন্ন ব্র‍্যান্ডের ভালো-খারাপ অনেক কিছুই থাকে।বাজে ফোন কিনা থেকে বিরত থাকুন।
বর্তমানে বাংলাদেশের বাজারে Samsung,Walton,Symph­ony, এছাড়াও Oppo,Vivo,Xaomi ভালো বাজারে জায়গা করে নিয়েছে।২/৪/৬/­৮র‍্যামের মোবাইল গুলো বাজারে ভালো অবস্থানে আছে অধিক র‍্যামের মোবাইলফোন গুলো তুলনামূলক কম গরম হয়।তাই ফোন কিনার সময় ভালো ফোনটি অবশ্যই বেচে নেওয়াটা আপনার নিজ দায়িত্ব।

: কিছু সংক্ষিপ্ত পদ্ধতি – যেগুলা আপনার ফোনটি গরম হওয়া থেকে কিছুটা ভালো রাখবে আশাকরি।

– একটানা বেশিসময় ফোন ব্যবহার করবেন না।
ব্যবহারের মাঝখানে কিছুটা সময় মোবাইল ঠান্ডা জায়গায় রাখুন।এতে প্রসেসর Overload থেকে ফোন কে রক্ষা করবে।

– মোবাইলের র‍্যাম অনুযায়ী Games,Apps ব্যবহার করুন।
মোবাইল ৪০% Ram Space রাখুন।এতে মোবাইল হ্যাং এবং গরম হবেনা।

– Call Standby ফোনে কথা বলার ক্ষেত্রে মোবাইলের ব্যাটারি অনেক ক্ষয় হয়।
এর পাশাপাশি অনেক চার্জ যায়।তাই ফোনে কথা বলার জন্যেই অবশ্যই একটি ছোট নরমাল ফোন ব্যবহার করতে পারেন,সেগুলা গরম হয়না।

– ইন্টারনেট ব্যবহারের সময় মোবাইল সব চেয়ে বেশি গরম হয়ে থাকে,যার কারনে মোবাইল তুলনামূলক বেশি গরম হলে কিছুক্ষনের জন্যে Data Connection টি বন্ধ করে দিন। দেখবেন সাথে সাথেই মোবাইল ঠান্ডা হয়ে যাবে।

– মোবাইল সার্বক্ষণিক চেষ্টা করুন শীতল জায়গায় ব্যবহার করার ।

Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *